ভগবান রামের আর রথযাত্রার নাম করে ‘অশান্তি’ সৃষ্টির চেষ্টা চলছে

বাংলা hunt ডেস্ক: ভগবান রামের আর রথযাত্রার নাম করে ‘অশান্তি’ সৃষ্টির চেষ্টা চলছে। মানুষ এই ঘটনা ভালো চোখে দেখছেন না। মানুষই তার প্রতিবাদ করবেন। বুধবার বাঁকুড়ার কোতুলপুরে তৃণমূলের ‘উন্নয়ন যাত্রা’য় সূচণা অনুষ্ঠানে এভাবেই এভাবেই কেন্দ্রে ক্ষমতাসীন বিজেপিকে তুলোধনা করলেন তৃণমূলের বাঁকুড়া জেলা সভাপতি অরুপ খাঁ। তিনি আরো বলেন, রাজ্যে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে রাজ্য সরকার সারা রাজ্য জুড়েই উন্নয়নের কর্মযজ্ঞ চালাচ্ছে। দলের পক্ষ থেকে বাঁকুড়া জেলা জুড়ে সেই উন্নয়নের প্রচার যেমন চালানো হচ্ছে তেমনে ব্রিগেডে সমাবেশের প্রচারও চলছে বলে তিনি জানান।

জঙ্গল মহলে ‘উন্নয়ন যাত্রা শেষে’ এবার খোতুলপুর থেকে জেলার বাকি অংশে সুদৃশ্য ট্যাবলো সহ প্রচার কর্মসূচী শুরু করেছে তৃণমূল। প্রতিদিনই জেলার বিভিন্ন প্রান্তে এই কর্মসূচী জেলা শীর্ষ নেতৃত্বের পাশাপাশি দলীয় টিকিটে নির্বাচিত সর্ব্বস্তরের জনপ্রতিনিধিরা উপস্থিত থাকছেন। এদিন জয়রামবাটি ‘মায়ের ঘাটে’ রামকৃষ্ণ সারদা দেবীর প্রতিকৃতিতে মালা দিয়ে ‘উন্নয়ন যাত্রা’র সূচণা হয়। এদিনের অনুষ্ঠানে উপস্থিত রাজ্যের মন্ত্রী শ্যামল সাঁতরা কেন্দ্রে ক্ষমতাসীন বিজেপিকে তুলোধনা করেন। তিনি বলেন, ধর্মের নামে বিভেদ সৃষ্টি মানুষ মেনে নেবেননা। এটা বাংলার সংস্কৃতি নয়। বাংলার সংস্কৃতি সকলকে এক সাথে নিয়ে চলা। সর্ব ধর্মের মিলন ক্ষেত্র এই বাংলায় কোন রকম ধর্মীয় ভেদাভেদ মানুষ মেনে নেবেননা। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সুযোগ্য নেতৃত্বে বাংলা আজ সর্বক্ষেত্রেই এগিয়ে গেছে। কন্যাশ্রী, যুবশ্রী, খাদ্যশ্রী, সবুজ সাথী সবেতেই আজ সেরার সেরা আমাদের এই রাজ্য।

তৃণমূলের এদিনের ‘উন্নয়ন যাত্রা’য় উপস্থিত ছিলেন জেলা সভাপতি অরুপ খাঁ, মন্ত্রী শ্যামল সাঁতরা, কোতুলপুর ব্লক সভাপতি প্রবীর গরাই প্রমুখ।

জেলা তৃণমূল সূত্রে খবর, জেলা জুড়ে 140 টি সভা হবে। যেখানে মূলত রাজ্য সরকারের উন্নয়নের কথা তুলে ধরা হবে। পাশাপাশি ব্রিগেড সমাবেশের প্রচারেও এই কর্মসূচীকে কাজে লাগানো হবে। জেলার সব প্রান্তের সভা ও প্রচার শেষে উন্নয়ন যাত্রা বাঁকুড়া শহরে গিয়ে শেষ হবে বলে জেলা তৃণমূল পাওয়া সূত্রে খবরে জানা গেছে।

4Shares