ইন্টারনেটে নজরদারি ছাড়া দশ সন্ত্রাসবাদীকে ধরা যেত না : জেটলি

internet

সব সংবাদ : কিছুদিন আগে কম্পিউটারে নজরদারির বিষয়ে ১০ টি সরকারি তদন্তকারী এজেন্সিকে ছাড়পত্র দিয়েছিলো কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। তারপরেই গত কাল কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা NIA ১০ জন আইসিস সন্ত্রাসবাদীকে গ্রেপ্তার করেছে। কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি ‘ISIS Module’ ফাঁস করার জন্য NIA কে প্রশংসা করেছেন। একইসঙ্গে কম্পিউটারে নজরদারি নিয়ে বিরোধিতার জন্য এক হাত নিয়েছেন অন্য বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলিকে। নিজের টুইটার অরুণ জেটলি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের নির্দেশিকার সমর্থনে মুখ খুলে বলেছেন, ইন্টারনেটের মাধ্যমে যোগাযোগের ওপর নজরদারি না চালালে এই জঙ্গি মডিউলের হদিশ পাওয়া মোটেও সম্ভব হত না।

আরও পড়ুন : সন্দেহ হলেই চলবে নজরদারি। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের নতুন নিয়মে জব্দ হবে এ দেশের পাকিস্তানিরা

বুধবার ২টি রাজ্যের ১৭টি স্থানে বিভিন্ন বাড়িতে হানা দিয়ে ১০ জনকে গ্রেফতার করেছে NIA। তাদের দাবি, এরা ISIS জঙ্গি মডিউলের সদস্য। ধারাবাহিক বিস্ফোরণ ঘটানোর জন্য সম্পূর্ণ প্রস্তুতি নিয়ে ফেলেছিল এরা।

কংগ্রেস এর আগে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে সাধারণ মানুষের ওপর নজরদারির অভিযোগ করেছিল। সে প্রসঙ্গ তুলে কংগ্রেসকে কটাক্ষ করেছেন অরুন জেটলি।

আরও পড়ুন : NIA দ্বারা ধৃত সন্ত্রাসবাদীদের মধ্যে মাদ্রাসার মুফতি, আমেঠির ছাত্র

কংগ্রেস কেন্দ্রের বিজেপি সরকারেক নজরদারি ইস্যুতে আক্রমণ করেছিলেন। তিনি বলেছিলেন, “কেউ যদি আপনার কম্পিউটারের ওপর নজরদারি চালায় তাহলে বুঝতে হবে অরওয়েলের রাষ্ট্র ব্যবস্থা চালু হয়ে গেছে। জর্জ অরওয়েল কাছাকাছিই আছেন। এ ঘটনা নিন্দাজনক।”

অরুণ জেটলি বলেছেন, দেশের নিরাপত্তা সবার আগে। জীবন এবং ব্যক্তিগত স্বাধীনতা কেবলমাত্র শক্তিশালী গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রেই টিঁকে থাকতে পারে, জঙ্গি অধ্যুষিত রাষ্ট্রে নয়। সাধারণ মানুষ যদি জঙ্গির ভয়ে বেঁচে থাকে তা হলে ব্যক্তি স্বাধীনতা কোথায় যাবে।