ভয় পেয়েছে কেজরিওয়াল? আগামী বিধানসভায় একা সাহস নেই।

সব সংবাদ : তৎকালীন কেন্দ্রের ইউ.পি.এ সরকার তথা কংগ্রেসের বিরুদ্ধে, লোকপাল বিলের পক্ষে আন্না হাজারের সাথে একমঞ্চে লড়েছিলেন অরবিন্দ কেজরিওয়াল তথা দিল্লির বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী। আয়কর বিভাগের বড় আধিকারিকের পদ ছেড়ে রাজনৈতিক দল তৈরি করেন তিনি। প্রথমে তিনি সমাজের শিক্ষিত, শিল্পী, সাংবাদিক ও ইঞ্জিনিয়ার সহ বিভিন্ন স্তরের স্বনামধন্যদের নিয়ে রাজনৈতিক দল গঠন করে এসেছিলেন দিল্লিবাসীর কাছে। তৎকালীন কংগ্রেসের শিলা দীক্ষিতের সরকারকে ছুড়ে ফেলে দিয়ে দিল্লীবাসি সুযোগ দিয়েছিলো স্বপ্নের ফেরারিকে।

আরও পড়ুন :   গুগলে ভিখারি মানেই পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী

২০১৩ সালের বিধানসভা নির্বাচনে সংখ্যাগরিষ্ঠতা থেকে ৪ আসন কম ছিল আম-আদমি পার্টির। বিজেপিকে আটকাতে কংগ্রেস সমর্থন করেছিল কেজরিওয়াল সরকারকে। জোট সরকারকে ভেঙে দিয়ে দ্বিতীয়বারের জন্য নির্বাচনে নেমেছিল আম-আদমি পার্টি। দিল্লির পুরানো সব রেকর্ড ভেঙে দিয়ে ৭০ টি আসনের মধ্যে ৬৭ টি আসনে জিতে দ্বিতীয়বারের জন্য সংখ্যাগরিষ্ঠ সরকার গড়ে কেজরিওয়াল। দেশের রাজনৈতিক হাল বদলাতে এসে নিজেই বদলে গিয়েছেন অরবিন্দ বাবু। একে একে বহু বিধায়ক অরবিন্দ কেজরিওয়ালের দিকে আঙ্গুল তুলে সঙ্গ ছেড়ে কেউ নতুন দল গড়েছেন আবার কেউবা বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন। গত দিল্লী মিউনিসিপাল কর্পোরেশন নির্বাচনে গো-হারা হেরেছিল এই আম-আদমি পার্টি।

আরও পড়ুন :  আজ ক্রিকেটাররা বিক্রি হবেন গোলাপি শহরে।

দিল্লিতে পুনরায় একা ক্ষমতায় আসা কঠিন বুঝে তিনি এখন সঙ্গী খুঁজছেন। বিজেপিকে ভয় পেয়ে তিনি আবার কংগ্রেসের সাথে জোট করে নির্বাচন লড়ার কথা ভাবছেন। নির্বাচনে লড়াই করার মতো অর্থ ও নেই তার রাজনৈতিক তহবিলে। বিশ্বাস হারিয়ে  
পার্টি তহবিলে দান করা ছেড়ে দিয়েছেন অর্থদাতারা। বন্ধ হয়েছে বিদেশি অনুদানও। এই মুহূর্তে আম-আদমি পার্টির হাল এতো খারাপ যে হালখাতা খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না
কংগ্রেসকে বার্তা দিতে কংগ্রেসের কোনো আমন্ত্রণ ছাড়ছেন না তার দল। তিন রাজ্যে মুখ্যমন্ত্রী শপথ অনুষ্ঠানে কংগ্রেসের কাছাকাছি গিয়েছেন কেজরিওয়ালের প্রতিনিধিরা। বিজেপি জুজুতে আগামী দিল্লির বিধানসভা নির্বাচনে নতুন রাজনৈতিক সমীকরণ দেখতে চলেছে দিল্লিবাসী ৷

1324Shares