তিন রাজ্যে বিজেপি জিতলে সর্বোচ্চ শিখরে যাবে শেয়ার বাজার

নিজস্ব ডেস্ক: বাজার চায়, রাজ্যে ও কেন্দ্রে একটি স্থায়ী সরকার, আর সরকার যদি বিজেপির মতো শিল্প বান্ধব হয় , তা হলে আর কথা নেই। গত বছর ১৮ ডিসেম্বর গুজরাট নির্বাচনের দিন বাজারে যে উত্থান পতন ছিল , সেই একই উত্থান পতন হতে পারে আগামী ১১ ডিসেম্বর ও।
গত বছর গুজরাট বিধানসভা নির্বাচনের ফলাফলের দিন বিজেপি যখন কংগ্রেস থেকে এগিয়ে ছিল তখন নিফটি বেড়েছিল ১৩৭ পয়েন্ট আর সেনসেক্স উঠেছিল ৪০০ পয়েন্ট উপরে। কিন্তু যখন বিজেপিকে পিছনে ফেলে কংগ্রেস ৮৭-৭৪ আসনে এগিয়ে ছিল। তখন দশ মিনিটে শেয়ার বাজারে পড়েছিল নিফটি ৩০০ পয়েন্ট এবং সেনসেক্স পড়েছিল ৮০০ পয়েন্টের উপরে। এ থেকে বোঝা যায় যে, বিনিয়োগকারীরা বিজেপি কংগ্রেস পার্টিকে চাই কি না জানি না কিন্তু একটা স্থায়ী সরকার চায় কেন্দ্রে। গুজরাট নির্বাচনে হারলে বিজেপির কেন্দ্রে ফল খারাপ হতে পারে বলে মনে করেছিলেন বিশেষজ্ঞরা। কারণ যে গুজরাট মডেল দেখিয়ে নরেন্দ্র মোদী কেন্দ্রে ক্ষমতায় এসেছে সেই গুজরাট মডেল গুজরাটবাসী গ্রহণ করে নি। তাতে ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনের আগে মোদী সরকার সারা দেশের জনগনের বিশ্বাস হারিয়ে ফেলত।

আরও পড়ুন: দুপুর ১ পর্যন্ত ৪১ শতাংশ ভোট পড়েছে রাজস্থানে, তেলেঙ্গানায় ৫০ শতাংশ

বিজেপির ফলাফল যত ভালো হয়েছে মার্কেট ততই বেড়েছিল দ্রুত গতিতে। গুজরাট নির্বাচনের ফল ঘোষণার পরে বিনিয়োগকারীদের সংখ্যা বেড়েছিল। একমাসের ভিতরে নিফটি ৯৯০০ থেকে চলে গিয়েছিলো ১১০০০ এর ঘরে। কিন্তু সাধারণ বাজেটের পর বিনিয়োগকারীরা অখুশি হয়ে শেয়ার বেচতে শুরু করে যার ফলে বাজার আবার নিন্মমুখী হয়। ৫ রাজ্যে নির্বাচনের দিন ঘোষণার পর বাজারে আবার উত্থান পতন দেখা দেয়। বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যম ও সমীক্ষাকারী সংস্থা সমীক্ষার ফল জানানোর সাথে সাথে বাজারে উত্থান পতন হয়েছে। আজ আবার অনেক বুথ ফেরত সমীক্ষার ফলাফল জানাবে ৫ টার পর। আগামী সোমবার থেকে আবার উত্থান পতন শুরু হবে বাজারে।

বিজ্ঞাপন

তিন রাজ্যে বিজেপি ক্ষমতায় টিকে থাকতে পারলে আগামী লোকসভা নির্বাচনের আগে বাজারের সূচক সর্বোচ্চ শিখরে পৌঁছাবে বলে মনে করেছে বাজার বিশেষজ্ঞরা। তাতে সাধারণ বিনিয়োগকারীরা কতটা লাভবান হবেন সেটি নির্ভর করছে তাদের বিনিয়োগের উপর। অনেকে বাজারে উত্থান পতনে আতঙ্কে ভালো শেয়ার বেঁচে চলে যান।