পাকিস্তানের নতুন ছক, ইমরানের ফোন রাষ্ট্রসংঘের মহাসচিবকে

রানার প্রতিবেদন : কাশ্মীর সমস্যাকে আন্তর্জাতিক মঞ্চে নিয়ে যেতে এবার নতুন করে তৎপর হলেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। কাশ্মীর প্রসঙ্গ রাষ্ট্রসংঘে আলোচনার জন্য ইমরান অনুরোধ জানালেন রাস্ত্রসংঘের মহাসচিবকে। সংবাদ সংস্থা পিটিআই-এর খবর অনুযায়ী, রাষ্ট্র সংঘের মহাসচিবকে ফোন করেন পাক প্রধানমন্ত্রী। দুজনের মধ্যে বেশ কিছুক্ষণ কথাবার্তা হয়। কি নিয়ে আলোচনা হয়েছে সেব্যাপারে প্রথমে মুখ খুলতে চাননি রাষ্ট্র্বসঙ্ঘের মুখপাত্র। তিনি বলেন, বিভিন্ন দেশের প্রধানরা মহাসচিবকে ফোন করেন, কথা বলেন, এটা রুটিন প্রক্রিয়া। তবে শেষে তিনি স্বীকার করে নিয়েছেন, কথা হয়েছে কাশ্মীর প্রসঙ্গে। মুখপাত্র এও বলেছেন, কাশ্মীর নিয়ে রাস্ত্রসংঘের অবস্থানও জানিয়ে দেওয়া হয়েছে পাকিস্তানকে। বলা হয়েছে, কাশ্মীর নিয়ে রাস্ত্রসংঘের সামরিক পর্যবেক্ষক দল এব্যাপারে দায়িত্বপ্রাপ্ত ।

দিল্লির পক্ষে থেকে কড়া প্রতিক্রিয়া জানানো হয়েছে এই ঘটনায়। বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্র রবিশ কুমার বলেন, এই ঘটনায় স্পষ্ট পাকিস্তান পদে পদে দ্বিমুখী আচরণ করছে। তাদের উচিত নিজের দেশের সমস্যা নিয়ে মাথা ঘামানো, কাশ্মীর নিয়ে যত তারা নাক না গলাবে ততই মঙ্গল, কেননা কাশ্মীর ভারতের অবিচ্ছেদ্য অঙ্গ।কাশ্মীর নিয়ে ভারত তার অবস্থান আগেও স্পষ্ট করেছে , আবারও জানাচ্ছে, কাশ্মীর ভারতের অভ্যন্তরীন বিষয়, সুতরাং ভারতের অভ্যন্তরীন বিষয়ে পাকিস্তান যত হস্তক্ষেপ করার চেষ্টা করবে ততই তিক্ত হবে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক ।

ক্ষমতায় বসার পর ভারত-পাকিস্তান সম্পর্ক নিয়ে নতুন উদ্যোগ নেবার কথা মুখে বলেছিলেন পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। দুদেশের আলোচনাও তিনি চেয়েছিলেন। কিন্তু মুখে এক কাজে আর এক করে অচিরেই সেই বিশ্বাসযোগ্যতা নষ্ট করে পাকিস্তান। ভারতীয় জওয়ানের মাথা কাটার ঘটনাকে সাফল্য হিসাবে উদযাপন করে দিল্লির ক্ষোভের কারন ঘটায় ইসলামাবাদ, এরপরই দ্বিপাক্ষিক আলোচনার প্রস্তাব খারিজ করে দেয় ভারত। এই আবহে রাস্ত্রসংঘে কাশ্মীর প্রসঙ্গ তোলার জন্য পাক প্রধানমন্ত্রীর নয়া প্রচেষ্টা সীমান্তের মাঝে বরফ টাকেই আরো জমাট করে তুললো ।