ভারতীয় নৌসেনা পাকিস্তানের থেকে অনেক গুন বেশি শক্তিশালী কেন ?

নিজস্ব সংবাদ :পাকিস্তানের সাথে হওয়া ১৯৭১ এর যুদ্ধে ভারত জয় হাসিল করে নিয়েছিল। আর সেই ঐতিহাসিক দিনকে স্মৃতি হিসেবে ধরে রাখার জন্য আজকের দিন মানে ৪ঠা ডিসেম্বর ভারতীয় নৌসেনা দিবস হিসেবে পালিত হয়। আজকের দিনে ভারতীয় নৌসেনা বিশ্বের চতুর্থ শক্তিশালী নৌসেনা হিসেবে পরিচিত। ভারতের আশেপাসে নেই পাকিস্তান। পাকিস্তানের নৌসেনা বিশ্বে ১৩তম স্থানে আছে। ভারতীয় নৌসেনায় ২৯৫টি জাহাজ আছে। যুদ্ধ জাহাজ ১৪, বিমানবাহী জাহাজ ১, ডেস্ট্র্যার্স ১১, জঙ্গি জেট ২৩, সাবমেরিন ১৫, নজরদারী জাহাজ ১৩৯ এবং ৬টি জঙ্গি জাহাজ।

পাকিস্তানি নৌসেনা বিশ্ব ১৩ নং স্থানে আছে। তাঁদের কাছে মোট ১৯৭টি জাহাজ আছে। তাছারাও তাঁদের কাছে কোন বিমানবাহক জাহাজ নেই। ১০টি যুদ্ধ জাহাজ, কিন্তু একটিও ডেস্ট্রয়ার নেই। ৮টি সাবমেরিন। ১৭টি নজরদারী জাহাজ। আর তিনটে ছোট জঙ্গি জাহজ আছে তাঁদের, চীনের নৌসেনা ভারতের থেকে মাত্র একধাপ এগিয়ে বিশ্ব তৃতীয় স্থান অর্জন করেছে। তাঁদের কাছে মোট ৭১৪টি জাহাজ আছে।

পরমাণু হাতিয়ারের কথা বললে, কিছুদিন আগে পারমাণবিক অস্ত্র দিয়ে সুসজ্জিত আইএনএস আরিহান্ট কে ভারতীয় নৌসেনায় নিযুক্ত করা হয়েছে। আর এরপরে ভারতের শক্তি অনেক গুন বৃদ্ধি পেয়েছে। আমেরিকা, ফ্রান্স, রাশিয়া, ব্রিটেন আর চীনের পর ভারত ষষ্ঠম দেশ যারা নিজের ক্ষমতায় পারমাণবিক সাবমেরিন বানাতে পারে।

২৬/১১ এর হামলার পর নৌসেনা নিজেদের অনেক মজবুত করেছে। নেভি আর কোস্ট গার্ডের সংযোগ স্থাপনের জন্য স্ট্যান্ডার্ড অপারেটিং প্রসেডিউর ব্যাবহার করা হয়ে থাকে। র‍্যাডার স্টেশন গুলোতে হাই রেজুলেশন ক্যামেরা ব্যাবহার করা হয়, সেই ক্যামেরা গুলো সমুদ্রের মধ্যে সাত মাইল পর্যন্ত দেখতে সক্ষম। ভারতের ৭৫০০কিমি দীর্ঘ সামুদ্রিক সীমান্তের পাহারা দেওয়ার জন্য ৩৮টি নতুন র‍্যাডার স্টেশন তৈরি হচ্ছে।

28Shares