লড়াইটা হবে জনতা বনাম মহাজোটের : নরেন্দ্র মোদী

সব সংবাদ : ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনে জনতা বনাম গঠবন্ধন বিজেপি বিরোধী জোট-এর লড়াই হবে। সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যম সংস্থাকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে একথা বলেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, রাম মন্দির নির্মাণ প্রসঙ্গে “আইনি প্রক্রিয়া চলছে । সেই প্রক্রিয়া শেষ হলে তবেই রাম মন্দির নির্মাণের ক্ষেত্রে অর্ডিন্যান্সের বিষয়ে ভাববে সরকার।”

আরও পড়ুন : চীনের ওপর নিষেধাজ্ঞা লাগালো মোদী সরকার

আজ নোট বাতিল থেকে গান্ধি পরিবার সহ একাধিক বিষয়ে কথা বলেন নরেন্দ্র মোদি।
তিনি নোট বাতিল প্রসঙ্গে বলেন, “এটা কোনও ঝটকা ছিল না। কারণ সরকারের তরফে বিষয়টি নিয়ে পরোক্ষে একবছর আগেই থেকে সবাইকে সতর্ক করা হয়েছিল। আমরা আগেই বলেছিলাম যে, যদি কারও কাছে কালো টাকা থাকে তবে তার হিসাব দাখিল করে ফাইন দিন। কিন্তু অনেকেই সে কথা শোনেনি কারণ তারা ভেবেছিল এটা বোধহয় শুধু কথার কথা। প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, GST জনসাধরণের ভালো কাজে লাগবে ভবিষতে ।

আরও পড়ুন : নতুন বছরের শুরুতে বড় ঘোষণা করতে চলেছে বিজেপি সরকার

রিজ়ার্ভ ব্যাঙ্কের গভর্নর উর্জিত প্যাটেলের পদত্যাগ প্রসঙ্গে মোদি বলেন, তিনি ব্যক্তিগত কারণে পদত্যাগ করেছেন। এটা আগে কখনো বলিনি কিন্তু এখন বলছি যে, উনি প্রায় সাত মাস আগে পদত্যাগের বিষয়টি নিয়ে আমার সঙ্গে আলোচনা করেছিলেন। এমনকী সেই সময় উনি পদত্যাগের ইচ্ছা প্রকাশ করে আমাকে চিঠিও দিয়েছিলেন। তাঁর পদত্যাগের পিছনে কোনও রাজনৈতিক চাপ ছিল না। তিনি রিজ়ার্ভ ব্যাঙ্কের গভর্নর হিসেবে যথেষ্ট ভালো কাজ করেছেন।”

আরও পড়ুন : সুশাসন দিবসে দেশবাসীকে দেশের লম্বা সেতু উপহার দেবেন মোদী

গান্ধি পরিবারের সমালোচনাও করেন মোদি বলেন, “এ দেশে একটি পরিবারকে ফার্স্ট ফ্যামিলি বলে কেউ কেউ মনে করেন। সেই পরিবারের সদস্যরা চার প্রজন্ম ধরে দেশ শাসন করেছেন। কিন্তু এখন সেই পরিবারের সদস্যদের বিরুদ্ধে আর্থিক কেলেঙ্কারির অভিযোগে মামলা চলছে। তাঁরা সেই মামলায় জামিনে বাইরে রয়েছেন। তথ্য গোপন করে তাঁদের বাঁচাতে চাইছে কিছু লোক। প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন যে “ সার্জিকাল স্ট্রাইক” এক লড়াইতেই পাকিস্তান শুধরে যাবে এটা ভাবা ভুল। পাকিস্তানের শোধরাতে এখনও অনেক সময় লাগবে। তিনি এই কথা জানায় সংবাদমাধ্যমে