মমতা যাকেই “I LOVE YOU” বলেছে সেই নিঃস্ব হয়েছে

বৃন্দাবন, প্রতিবেদন: “I LOVE YOU” মানে “আমি তোমাকে ভালোবাসি” ভালোবাসায় কোনো দোষ নেই। এক সময়ের কংগ্রেস নেত্রী চার দশক ধরে লড়াই করে আজ পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী। বহু লড়াই তিনি জীবনে করেছেন। বহুবার মার্ ও খেয়েছেন। কিন্তু লড়াই থামান নি। কংগ্রেসের নীতি তার লড়াইয়ে প্রভাব ফেলেছিল, তাই তিনি কংগ্রেস ছেড়ে নতুন দল গঠন করেন। ১৯৯৮ সালে ১ লা জানুয়ারী তিনি তৃণমূল কংগ্রেসের প্রতিষ্ঠা করেন। আজ থেকে ২১ বছর আগে সদ্যজাত শিশু ছিল তৃণমূল কংগ্রেস। কংগ্রেসের নীতিতে অবিস্বাসী মমতা সেই সময় কংগ্রেসের জাতীয়স্তরে প্রতিদন্ধি বিজেপির সাথে সখ্যতা তৈরি করে। ততকালীন প্রধানমন্ত্রী অটল বিহারি বাজপেয়ীর নেতৃত্বে পশ্চিমবঙ্গেও বিজেপি ভালো সংগঠন তৈরি করে ফেলেছিল। ১৯৯৯ সালে বিজেপি দমদম ও কৃষ্ণনগর লোকসভা জেতে। জোট সঙ্গী তৃণমূলকে সহযোগিতা করে বিজেপি। মমতা ব্যানার্জী অটল বিহারী সরকারের কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হন।

সদ্যজাত শিশুকে লাকটোজেন খাওয়ায় বিজেপি। কেন্দ্রীয় বিজেপি নেতারা এসে মমতার হয়ে প্রচার করত। আস্তে আস্তে বিজেপিকে গ্রাস করতে থাকে মমতা। বিজেপির সংগঠন মমতার মায়াজালে রূপান্তরিত হতে থাকে তৃণমূলে। বিজেপি হতে থাকে দুর্বল। আর তৃণমূল হতে থাকে শক্তিশালী। ২০০২ সালে রেলমন্ত্রী হয়ে প্রথম রেল বাজেট পেশ করেন মমতা। কিন্তু মন্ত্রিত্ব টিকিয়ে রাখে নি মমতা। পদত্যাগ করে তিনি ফের প্রথম মহিলা কয়লা মন্ত্রী হন মমতা ব্যানার্জী। ২০০৪ সালে এনডিএ সরকারের পতন হয়। বাংলায় বিজেপির ভরাডুবি হয়। একটা মমতা তৃণমূলের প্রতীকে দিল্লী যান। অনেকে বলে রাজ্য বিজেপিকে শেষ করেছে মমতা।

২০০৯ সালে মমতা কংগ্রেসের হাত ধরে রাজ্যে ১৯ লোকসভা আসনে জেতে মমতার দল। কিন্তু ২০১৪ সালে মমতা ৩৪ আসনে জিতলেও কংগ্রেস গোহারা হারে। রাজ্যের কংগ্রেসকে গ্রাস করে তৃণমূল। ২০০৯ সালের কংগ্রেসক ভালোবাসি বলে কংগ্রেসের ভোটকে তৃণমূলে রূপান্তরিত করে নেয় মমতা। রাহুলের প্রধানমন্ত্রী হবার স্বপ্ন ৪৪ আসনে থমকে যায়।

আরও সংবাদ: “বাহ্ ক্যয়া বাত” -ব্রিগেডের জবাব দিলেন মোদী।

কারা কারা শেষ-

দুই জাতীয় দলকে ভালোবেসে নিজের করে নিয়েছে মমতা। তা ছাড়াও তিনি যাকে যাকে ভালোবেসেছেন সবাই যেন তার ভালোবাসায় মত্ত হয়ে দুরাবস্থায় পড়েছে। রাজনীতি আর নিজস্ব কেরিয়ার শেষ হতে বসেছে।
যেমন –
অটল বিহারী শেষ
রাহুল শেষ
মনমোহন শেষ
কেজরিওয়াল শেষ
মায়াবতী শেষ
অখিলেশ শেষ
লালুপ্রসাদ শেষ
আন্না হাজারে শেষ
তাপস পাল শেষ
শতাব্দী শেষ
শুভাপ্রসন্ন শেষ
কেডি সিং(আলকেমিস্ট) শেষ
নচিকেতা শেষ
দেব শেষ
সোহম শেষ
সুদীপ্ত সেন একেবারে শেষ
মদন শেষ
সুদীপ শেষ
ইন্দ্রনীল শেষ

উপসংহার

কে কিভাবে শেষ হয়েছে বুদ্ধিমান পাঠক জানবে আশা রেখেই বিস্তারিত জানানো হলো না। গত দিনের বিগ্রেডের সভায় মমতা অনেককে ভালোবেসে কাছে এনেছেন। তারা কেউ কেউ আগে থেকে শেষ হয়েই এসেছেন। কেউ কেউ আবার নব্য। মমতা লড়াইতে যতটা পটু রাজনীতিতে আরো বেশি পটু বলে রাজনৈতিক মহলে বেশ আলোচিত। রাহুল যখন ফের গুটি গুটি পায়ে প্রধানমন্ত্রী পদের দিকে এগোচ্ছে তখনই ফের “I LOVE YOU” বলছে মমতা। মোদিকে বিরোধিতা করেছে বলে মোদী এখনো শেষ হয় নি। যে দিন মোদিকে “I LOVE YOU” বলবে সেদিন মোদিও শেষ হয়ে যাবে ।

399Shares