যেভাবে ভারতের ধর্মীয় রাজনীতির ছায়া পড়ছে যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচনে

ডেমোক্র্যাটিক পার্টির প্রতি ভারতীয়-আমেরিকানদের চিরাচরিত আনুগত্যে যেভাবে চিড় ধরেছে, যেভাবে তারা ডোনাল্ড ট্রাম্পের ভক্ত হয়ে পড়ছেন – নভেম্বরের নির্বাচনের আগে তা নিয়ে জো বাইডেন শিবির চিন্তিত।

‘ভারত-বিরোধী’ এবং এমনকি ‘হিন্দু-বিরোধী’ বলে ভারতীয়-আমেরিকান সমাজের বিরাট একটি অংশের মধ্যে যে ইমেজ তাদের তৈরি হচ্ছে – তা ঘোচানোর চেষ্টায় নেমেছেন ডেমোক্র্যাটরা।

ভারতের স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে আজ (শনিবার) এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে দুই সিনিয়র উপদেষ্টাকে সাথে নিয়ে জো বাইডেন ভারতীয়-আমেরিকান ভোটারদের উদ্দেশ্যে ভাষণ দেবেন বলে কথা রয়েছে।

তাছাড়া, ডেমোক্র্যাটদের অনেকে ভরসা করছেন, ভারতীয় এবং জ্যামাইকান বংশোদ্ভূত কামালা হ্যারিসকে রানিং-মেট হিসাবে বেছে নেওয়ায় ভারতীয়-আমেরিকান ভোটারদের সন্দেহ হয়ত কিছুটা ঘুচতে পারে।

মিজ হ্যারিসের মনোনয়ন নিশ্চিত করার পরদিনই আত্মপ্রকাশ করেছে ‘ইন্ডিয়ানস ফর বাইডেন (বাইডেনের পক্ষে ভারতীয়রা) ন্যাশনাল কাউন্সিল‘ নামে নূতন একটি সংগঠন।

সাংবাদিকদের কাছে এই খবর জানানোর সময় নতুন এই ক্যাম্পেইন গ্রুপের পরিচালক সঞ্জীব জোসিপুর বলেন, আমেরিকাতে ডেমোক্র্যাটরাই যে তাদের প্রকৃত মিত্র এবং ভরসা, তা ভারতীয় জনগোষ্ঠীকে বোঝাবেন তারা। “একজন কৃষ্ণাঙ্গ এবং ইন্ডিয়ান-আমেরিকান নারীকে প্রথমবারের মত ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসাবে মনোনয়ন দেওয়া একটি ঐতিহাসিক ঘটনা।”

“ইন্ডিয়ান-আমেরিকান সমাজকে বোঝানো খুবই জরুরী যে এদেশে তাদের ভবিষ্যৎ নির্ভর করছে এই নির্বাচনের ফলাফলের ওপর“ – বলেন সঞ্জীব জোসিপুর

কামালা হ্যারিস বনাম ভারতীয় ভোট

কামালা হ্যারিসের মনোনয়নে ভারতে এবং ভারতীয়-আমেরিকানদের মধ্যে যে এক ধরণের সাড়া পড়েছে তাতে সন্দেহ নেই। সোশ্যাল মিডিয়ায় চোখ রাখলেই তা স্পষ্ট।

ভারতের মিডিয়াতেও বিস্তর কথাবার্তা চলছে তাকে নিয়ে।

কামালা হ্যারিসের মনোনয়ন ঘোষণার দিনে ভারতের অন্যতম দৈনিক টাইমস অব ইন্ডিয়া তাদের শিরোনাম করে -‘ওয়ান অব আওয়ারস অর্থাৎ তিনি আমাদেরই একজন।‘

কিন্তু প্রশ্ন হচ্ছে, ডেমোক্র্যাটদের প্রতি ভারতীয়-আমেরিকানদের আনুগত্যে যে ফাটল তৈরি হয়েছে, কামালা হ্যারিসের মনোনয়নে তার কতটা সুরাহা হবে? ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রতি তারা যেভাবে আকৃষ্ট হয়ে পড়েছেন – তা কি বদলে যাবে?

অনেক পর্যবেক্ষক সন্দিহান। তাদের কথা – যুক্তরাষ্ট্রের রাজনীতিতে বা নির্বাচনে এখন ভারতীয়-আমেরিকানদের বিশাল একটি অংশের সমর্থনের প্রধান নিয়ামক হয়ে দাঁড়িয়েছে ভারতের চলমান অভ্যন্তরীণ রাজনীতি।

সেখানে আংশিক ভারতীয় বংশোদ্ভূত কামালা হ্যারিসের মনোনয়ন খুব বেশি পার্থক্য তৈরি করবে না।

ভারতীয় রাজনীতি এবং হিন্দু-মুসলিম বিরোধ

ভারতে মুসলিম এবং কাশ্মীর ইস্যুতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর হিন্দু জাতীয়তাবাদী বিজেপির নানা কর্মকাণ্ডে ডেমোক্র্যাটিক পার্টির বিশেষ করে দলের বামপন্থী অংশটির খোলাখুলি সমালোচনায় চটে গেছেন হিন্দু ভারতীয়-আমেরিকানদের বিরাট অংশ।

পাশাপাশি, কাশ্মীর সহ মোদী সরকারের বিভিন্ন বিতর্কিত নীতির প্রতি ডোনাল্ড ট্রাম্পের অকুণ্ঠ সমর্থন এবং সর্বশেষ চীনের সাথে চলমান সীমান্ত বিরোধে ভারতের প্রতি তার সমর্থনের ফলে ভারতীয় আমেরিকানদের মধ্যে রিপাবলিকান-প্রীতি দিনে দিনে বাড়ছে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।